Home / TRENDING / এবার তসলিমার পক্ষে মুখ খুললেন কলকাতার বুদ্ধিজীবীরা

এবার তসলিমার পক্ষে মুখ খুললেন কলকাতার বুদ্ধিজীবীরা

মধুমন্তী  : 

বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন আবার উঠে আসলেন বিতর্কের শীর্ষে। তবে এবার নতুন কোনও লেখার জন্য নয়। শনিবার মুম্বই থেকে ঔরঙ্গাবাদ ঘুরতে এসেছিলেন তসলিমা। ঔরঙ্গাবাদের অজন্তা, ইলোরা এবং তার আশেপাশের জায়গা ঘুরে দেখতে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু চিকালথানা বিমানবন্দর থেকেই তসলিমাকে বেরোতেই দেয়নি মুম্বই থানার পুলিশ। উল্টে পরবর্তী বিমানেই মুম্বই ফেরৎ পাঠিয়ে দেওয়া হয় তাঁকে। কারণ, ততক্ষণে বাইরে শুরু হয়ে গিয়েছে স্লোগান দেওয়া, “তসলিমা ফিরে যাও”। এদিনের বিক্ষোভের নেতৃত্বে ছিলেন ইমতিয়াজ জালিল, ঔরঙ্গাবাদের কেন্দ্রীয় নির্বাচনকেন্দ্রের এআইএমআইওএমের লেজিসলেটর। অবস্থা বেগতিক বুঝে আর ঝুঁকি নিতে চায়নি পুলিশ। অগত্যা মুম্বই ফিরে যেতে হয় তসলিমাকে।

ইতিমধ্যেই বুদ্ধিজীবি থেকে শিল্পীমহলে যা নিয়ে শুরু হয়ে হয়েছে তুমুল বিতর্ক।

শিল্পী সমীর আইচ জানান, “বিষয়টি অত্যন্ত লজ্জাজনক এবং দুঃখজনক। আমি শুরু থেকেই বলে আসছি একজন লেখিকা তিনি তাঁর জীবনে যা অভিজ্ঞতা তা নিয়েই লিখেছেন। সেটা ভাল না লাগলে সেটা ব্যক্তিগত। কিন্তু তার মানে এই নয় একটি সম্প্রদায় বা কিছু মানুষ মনে করলেন সমাজে কোন লেখাটা যাবে কোনটা যাবে না, সেই অধিকারও তাঁদের দেওয়া হয়নি। এটা খুবই অন্যায় বলে আমার মনে হয়েছে। তসলিমা নাসরিনের ওপর একের-পর-এক আঘাত হানা হচ্ছে এটা খুব স্বাস্থ্যকর বলে আমি মনে করি না। এইধরনের ঘটনা প্রতি মুহূর্তে শিল্পী এবং সমাজকেও প্রভাবিত করে।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গ নিয়ে নাট্যব্যক্তিত্ব দেবশঙ্কর হালদার জানান, “উনি কারওর ধর্মাচরনে আঘাত করেছিলেন বা কথা বলছেন সেটা নিয়ে যুক্তি-তর্ক তো হচ্ছেই, এটা নতুন কিছু নয়। তবে আমরা যদি পরস্পরের প্রতি আরও সহানুভূতিশীল এবং সহিষ্ণু হই, তাহলে ভাল হয়।”

ঔরঙ্গাবাদের ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ রাহুল শ্রীরাম এ প্রসঙ্গে বলেন, “তসলিমা নাসরিনকে মুম্বই ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয় কিছু আইন-শৃঙ্খলা সম্বন্ধীয় সমস্যার জন্য।” তিনি এও জানান, তসলিমাকে ঔরঙ্গাবাদ ভ্রমণ করতে নিষেধ করা হলে তিনি তা মেনে নেন এবং মুম্বই ফেরত যাওয়ার জন্য রাজী হন, জানান ডেপুটি পুলিশ কমিশনার। অন্যদিকে তসলিমার যে হোটেলে ওঠবার কথা ছিল, তার বাইরেও স্লোগান দিতে শুরু করেন বিক্ষোভকারীরা।

এদিনের ঘটনার তীব্র বিরোধিতা করেন নাট্যব্যক্তিত্ব সোহিনী সেনগুপ্ত। তিনি জানান, “এতদিনের মতো আবারও সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। এটা অত্যন্ত দুঃখের। শুধুমাত্র ভদ্রমহিলা একটু জোরে কথা বলতে পারেন, তাঁর নিজের একটা বক্তব্য রয়েছে। তারজন্য ওনার সঙ্গে এমন একটা ব্যবহার কাম্য নয়। তিনি ধর্ম নিয়ে লিখছেন বলে তো বটেই সেইসঙ্গে উনি একজন মহিলা বলে আরও বেশি করে এই ধরনের ঘটনাগুলো ঘটছে। যা সমাজের জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক।”

তবে ধর্মনিরপেক্ষ ভারতে এমন ঘটনার নজির কী বাঞ্ছনীয়! উঠছে প্রশ্ন।

 

লাইক শেয়ার ও মন্তব্য করুন

বিভিন্ন বিষয়ে ভিডিয়ো পেতে চ্যানেল হিন্দুস্তানের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

 

আরও পড়ুন

রাজ্যে বিজেপিকে রুখতে একজোট তৃণমূল-সিপিএম!

Spread the love

Check Also

আপনারা সরকারের মুখ বলে আধিকারিক দের বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর।

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্ক: রাজ্যের আমলাদের উজাড় করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার প্রথমে নতুন করে সংস্কার হওয়া …

WBCS দের সভা থেকে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্ক: WBCS দের সঙ্গে বৈঠক, আর সেখান থেকেই করা বার্তা রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের। …

বন্ধ ব্যান্ডেল জংশন

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্কঃ রুট রিলে ইন্টারলকিং কেবিন স্থানান্তর ও থার্ড লাইন সম্প্রসারণের জন্য হাওড়া-বর্ধমান মেইন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *