Home / TRENDING / কাকাবাবু মুকুল কী ব্যর্থ করে দেবেন মমতার ইয়েতি অভিযান!

কাকাবাবু মুকুল কী ব্যর্থ করে দেবেন মমতার ইয়েতি অভিযান!

দেবক বন্দ্যোপাধ্যায় :

‘উ’ এবং ‘প’ বাংলা বর্ণমালার এই দুটি বর্ণ যে তৃণমূল কংগ্রেসের জন্যে এত বর্ণময় হবে তা কে জানত!
‘উ’ দিয়ে উত্থান আবার ‘উ’ দিয়েই উত্তরপাড়া।
আর ‘প’ দিয়ে পাঁশকুড়া, আবার এই ‘প’ দিয়েই পতন নয়তো!
আবার এই দুটি বর্ণ পাশাপাশি রাখলে যে শব্দটি জন্মায় তা হল উপ। উদাহরণ, উপনির্বাচন, উপপুরপ্রধান ইত্যাদি ইত্যাদি। এই তো কয়েক বছর আগে ২১শে জুলাইয়ের সভায় মমতা বলেছিলেন, দলের মধ্যে কোনও উপ-নেতা তিনি বরদাস্ত করবেন না। আবার সেই দুটি ঘাতক বর্ণ উ এবং প!
১৭ বছর আগে উত্তরপাড়া পুরসভায় ঘাসফুলের পতাকা উড়িয়ে রাজ্য রাজনীতিতে তৃণমূল উত্থান শুরু হয়েছিল। তখন সারা রাজ্যে রমরম করছে বামফ্রন্ট। আকবর আলি খন্দকরের নেতৃত্ব, পিনাকী ধামালীর রাজনৈতিক মস্তিষ্ক এবং উত্তরপাড়া-কোতরং সিপিএমের অন্তর্কলহ রাজ্যে পরিবর্তনের ১১ বছর আগেই উত্তরপাড়ায় পরিবর্তন এনেছিল। তৃণমূলের রাজনৈতিক উত্থানের সেই শুরু। অন্তত জনতার দরবারে নিজেকে প্রমাণ করার নিরিখে।
‘উ’-তে উত্তরপাড়ায় উত্থানের পর এবার কী ‘প’-এ পতন শুরু হয়ে গেল পাঁশকুড়ায়। রাজনীতির লড়াই মাঠে যেমন হয়, টেবিলেও কম হয় না! আর টেবিলের লড়াইয়ের ভুরি ভুরি নজির শেষ কয়েক বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই রাজ্যে প্রতিষ্ঠা করেছেন। এই সব নজিরই কী এখন তাঁর মুখোমুখি দাঁড়াবে! পাঁশকুড়ার পরিস্থিতি এই প্রশ্নটাই এখন সামনে এনে দিচ্ছে।
পরের পর আদালতের যে ছবি দেখা যাচ্ছে তা তৃণমূলের পক্ষে শুভ ইঙ্গিত নয়। কোথাও ধমক, কোথাও ভৎর্সনা কোথাও হার। এমনকি নিম্ন আদালতেও সরকার পক্ষের উকিলকে বিচারকের কড়াবাক্য শুনতে হচ্ছে! সময়ের দেওয়াল লিখন ভাবাচ্ছে প্রবীন রাজনীতিকদের।
যে দলের ভিত্তি ছিল ভালবাসা সেই দলের শৃঙ্খলার নাম এখন ভয়। মামলার ভয়। সত্য ও মিথ্যা দুই প্রকার মামলার ভয়! নেতৃত্বের প্রতি আনুগত্য থাকলে নেই, না থাকলে আছে। মোদ্দা কথা, তুমি আমার তাহলে তুমি নিরাপদ। অন্যথায় বিপরীত।
এ হেন জুজু দেখান ইয়েতি-রাজনীতিরও একটা আশঙ্কা আছে। আশঙ্কা হল এই যে যাদের ইয়েতির ভয় দেখান হচ্ছে, তাদের যদি হঠাৎ ভয় কেটে যায়! ভয় কাটার ইঙ্গিত বুধবারই মিলেছে আদালতের রায়ে আবার পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যানের চেয়ারে বসা আনিসুর রহমানের গলায়। এদিন তিনি বলেছেন, “অাগামী দিনে জেলা জুড়ে তৃণমূল ছেড়ে অনেকেই বিজেপিতে যোগদান করবে। তৃণমূল কংগ্রেস সর্বত্র ভয়ের রাজনীতি শুরু করেছে। ভয়ের কারনে অনেকে বিজেপিতে যোগ দিতে কুণ্ঠিত হচ্ছে। তবে মানুষ বিজেপিকে চাইছে। তাই তৃণমূল ভয় দেখিয়ে আর বিজেপিকে অাটকাতে পারবে না।”
তৃণমূলের ইয়েতি অভিযানও কী ব্যর্থ হয়ে যাবে কাকাবাবু মুকুলের কাছে!
তৃণমূলে এখন এটাই সবচেয়ে বড় ভয়!

বিভিন্ন বিষয়ে ভিডিয়ো পেতে চ্যানেল হিন্দুস্তানের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

https://www.youtube.com/channelhindustan

https://www.facebook.com/channelhindustan

Spread the love

Check Also

আপনারা সরকারের মুখ বলে আধিকারিক দের বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর।

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্ক: রাজ্যের আমলাদের উজাড় করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার প্রথমে নতুন করে সংস্কার হওয়া …

WBCS দের সভা থেকে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্ক: WBCS দের সঙ্গে বৈঠক, আর সেখান থেকেই করা বার্তা রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের। …

বন্ধ ব্যান্ডেল জংশন

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্কঃ রুট রিলে ইন্টারলকিং কেবিন স্থানান্তর ও থার্ড লাইন সম্প্রসারণের জন্য হাওড়া-বর্ধমান মেইন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *