Breaking News
Home / TRENDING / দেখা যাক কত কি দেয় কেন্দ্র : মমতা

দেখা যাক কত কি দেয় কেন্দ্র : মমতা

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো:

দেখা যাক কত কি দেয় কেন্দ্র!
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমফান (Amphan) ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনের জন্য রাজ্যে আসার অনুরোধ জানানোর সঙ্গে সঙ্গে এই কথাটিই বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। বৃহস্পতিবার নবান্নের সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব, একবার ভিজিট করুন। নিজের চোখে পরিস্থিতি দেখলেই বুঝতে পারবেন ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কতটা।” মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “আমফানের জন্য রাজ্যে কতটা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা খতিয়ে দেখে তা কেন্দ্রের কাছে পেশ করা হবে। তার পর দেখা যাক কত কী দেয় কেন্দ্র”। এদিন টুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) পশ্চিমবঙ্গের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন। তিনি লেখেন, “পশ্চিমবঙ্গের অনেক ছবি দেখলাম। সাইক্লোন আমফান ভয়ংকর ক্ষতি করেছে। এখন খুব কঠিন সময়। সারা দেশ বাংলাকে সংহতি জানাচ্ছে। ওই রাজ্যের মানুষের কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করছি। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করছি যাতে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসে।”
প্রসঙ্গত, গত বছর যখন পুলিশ কর্তা রাজীব কুমারকে হন্যি হয়ে কলকাতায় খুঁজছিল সিবিআই। সেই সময় ১৮ সেপ্টেম্বর দিল্লিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বীরভূমের দেউচা পাঁচামি কয়লা খনি প্রকল্পের উদ্বোধনে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। যদিও, কেন্দ্রীয় ও রাজ্য বিজেপির নেতারা এই প্রকল্পে রাজ্য সরকারের দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রীকে আসতে নিষেধ করেছিলেন। সেই ঘটনা নিয়ে বিস্তর বিতর্ক হয়েছিল। কিন্তু, এবার পরিস্থিতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। রাজ্য আমফান ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত। তাই প্রধানমন্ত্রীকে এসে পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এমন কোনও প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী পরিদর্শনে এলে বড়সড় প্যাকেজ পায় সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলি। সেই ভাবনা থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে পশ্চিমবঙ্গে আসার আবেদন জানিয়েছেন। প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে আয়লার সময়ে কেন্দ্রে তৎকালীন মনমোহন সিংহ সরকার ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের জন্য রাজ্যকে ১০০০ কোটি টাকার অনুদান দিয়েছিল। তখন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায় (Pranab Mukherjee)। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংয়ের সরকার আর বামফ্রন্টের মুখাপেক্ষী ছিল না। তা সত্ত্বেও পশ্চিমবঙ্গকে এই আর্থিক প্যাকেজ দিয়ে সহায়তা করেছিলেন মনমোহন সিং (Dr. Manmohan Singh)। সেই ভাবনা থেকেই রাজনৈতিক বৈরিতা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সংকীর্ণ রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে রাজ্যকে আর্থিক সহায়তা দেবেন বলে ভাবনা তৃণমূল নেতৃত্বের। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাই প্রধানমন্ত্রীকে রাজ্যে আসার আবেদন জানিয়ে দিল্লির মুখাপেক্ষী।

সম্প্রতি করোনা ভাইরাস ও লকডাউন পরিস্থিতি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করলে, তা বিগ জিরো বলে আক্রমণ শানিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখন কঠিন পরিস্থিতিতে পড়েছেন তিনি। তাই রাজনৈতিক মহলের পর্যবেক্ষণে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ (Nirmala Sitaraman)। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রধানমন্ত্রীকে রাজ্যে পরিদর্শনে আসার অনুরোধের পর তাঁর ঝুলি থেকে রাজ্যের জন্য কিছু বরাদ্দ হয় কিনা?

Spread the love

Check Also

১৫ দিনে তিনবার পুলিশে বিদ্রোহ কলকাতায় ! টুইটে রাজ্যকে ভৎসনা রাজ্যপালের

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো: রাজ্যে ক্রমেই বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে সামনের সারি …

লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি হল ৩০ জুন পর্যন্ত

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হল লকডাউনের মেয়াদ। শনিবার সন্ধ্যায় এক নির্দেশিকায় এমনটাই …

করোনা কি তা রাহুল ঠিক বোঝেন না : কটাক্ষ নাড্ডার কটাক্ষ নাডডার

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। করোনা কি তা ঠিক রাহুল গাঁধী বোঝেন না। এভাবেই প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!