Breaking News
Home / TRENDING / করোনা : ভোট না ভেবে রাফ এন্ড টাফ হবার সময় এসেছে দিদি

করোনা : ভোট না ভেবে রাফ এন্ড টাফ হবার সময় এসেছে দিদি

শ্রীচরণেষু দিদি।

করোনা ও তার দমন সংক্রান্ত কিছু কথা আপনাকে ও একই সঙ্গে পাঠকদের নিবেদন করার নিমিত্ত এই খোলা চিঠির অবতারণা।

দিদি, আপনি কত বড় প্রশাসক তা প্রমাণ করার সঠিক সময় ও সুযোগ এসেছে।
আপনি তা করবেন কি?
যদি করেন, তাহলে নবান্নের ওই অবিবেচক আমলার বিরুদ্ধে আইনত কি ব্যবস্থা নেওয়া হবে তা জানান এবং সময় মত সেই ব্যবস্থা নিয়ে দেখান। জানতে খুব আগ্রহ হয়, ক্ষমতার অলিন্দে বসে থাকা এই ধরনের দায়িত্বজ্ঞানহীন বাচালরা কী মনে করেন, নভেল করোনা নামক জীবাণুটি তাঁর আর্দালী? নিজের পুত্রকে সুনাগরিক করতে পারেন নি, নিজে নিজের চেয়ারের মর্যাদা রক্ষা করতে পারেন নি, এবং এই রাজ্যের মানুষের সংকট বাড়িয়েছেন।

এই ধরনের অফিসারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা আপনি ঘোষণা করুন দিদি।
একটি প্রচার শুনতে খুব ভাল লাগছে, প্যানিক করবেন না শুধু সাবধানে থাকুন। এই প্রচারের ফলশ্রুতিতে করোনা-ছুটি পাওয়া বাংলার বীরেরা বাড়িতে না থেকে দীঘার সমুদ্রে সেলফি তুলছে।
যে দেশে গোমুত্র পান করা হচ্ছে, নিজ-মুত্র প্যাকেটে ভরে মহিলাকে লক্ষ্য করে ছোঁড়া হচ্ছে। যেখানে প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে চলন্ত ট্রেন থেকে পানমশলার পিক ফেলা একধরনের ছোটলোকি খেলা হয়, যেখানে রাস্তার কল খুলে রাখা সাধারণ ঘটনা, রাস্তায় থুতু ফেলা আরও সাধারণ, সেখানে এমন মার্জিত প্রচার অচল।
প্যানিক না করার প্রচারের শুভ চেষ্টায় এই মুত্র-তাড়িত সমাজ কিভাবে মুত্রাঘাত করতে পারে, উপরে উল্লেখিত ঘটনাগুলি থেকে দিদি আপনি নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারেন।
গোমুত্র যাঁরা পান করেছেন, তাঁরা যদি আজ করোনা সম্পর্কে নিশ্চিন্ত হয়ে যান এই ভেবে যে জীবাণু তাঁদের ছুঁতে পারবে না! তাঁরা যদি ন্যূনতম নিয়মগুলি না মানেন? এই সুযোগে করোনা যদি তাদের শরীরে বাসা বাঁধে? কি হবে তখন?

আপনাকে গোমুত্র পান নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করায় আপনি এড়িয়ে গেছেন। কেন? কি ভেবে? ভোট? সামনে পুর নির্বাচন? তারপর একুশ? ধর্ম বিশ্বাসে আঘাত? হিন্দু সেন্টিমেন্ট?
শুধু আপনি নন। দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীও প্রায় একই কাজ করেছেন। বলেছেন, করোনা রুখবে বলে কেউ কোনও কিছু খাওয়াতে এলে খাবেন না। সরাসরি বলতে পারেন নি গোমুত্র খাবেন না, গোমুত্র করোনা সারায় না, তাড়ায়ও না। শুধু বলেছেন, ডাক্তার দেখাতে। যা যা নিয়ম বলা হয়েছে সেগুলি মানতে। কেন পারেন নি? সেই ভোট? সেই বৃহত্তম গণতন্ত্র? সেই ধর্মীয় আবেগ? সেই, সেই আর সেই সবকিছু? সেই ভারতবর্ষ?
প্রধানমন্ত্রী সরাসরি বলতে পারেন নি, আর শিক্ষিত সংবাদ মাধ্যমের সাংবাদিক স্টোরি করে বাহবা পাওয়ার লোভে অশিক্ষিত, দরিদ্র, হয়ত লোভী একটি লোক কে দিয়ে গোমুত্র বিক্রি করিয়েছে।
হয়ত অশিক্ষিত কোনও দলনেতার মন পেতে, কুশিক্ষিত একজন ছোট নেতা, মিডিয়াকে আগে থেকে নিমন্ত্রণ করে কলকাতার বুকে গোমুত্র খাওয়াবার আয়োজন করেছেন, নিজেও খেয়েছেন। একদিকে অসৎ আর অন্যদিকে অশিক্ষিতদের কাণ্ডকারখানা নিয়ে খিল্লি করে সারাদিন টিআরপি কুড়িয়েছে মিডিয়া। তবু প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যটি মানুষের কাছে তুলে ধরেনি।
আর আপনি উত্তর এড়িয়ে গেছেন। আর রাজ্য রাজনীতির অতি অশিক্ষিত অংশ গোমুত্রের পক্ষে সওয়াল করেছে। হিন্দু ধর্মের রীতিনীতি নিয়ে মানুষের কাছে ভুল তথ্য দিয়েছে, এবং মশালা-মিডিয়ায় তা প্রচারও পেয়েছে।

করোনা সংকট সারা পৃথিবীতে এমন জায়গায় পৌছেছে যে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন আমেরিকায় ১০ লাখ ও গ্রেট ব্রিটেনে আড়াই লাখের ওপর মানুষের মৃত্যু হবে। জীবনহানি, স্বাস্থ্যহানি ব্যতিরেকেও অর্থনীতির যে পরিমাণ ক্ষতি হবে তা ভাবলে শিউরে উঠতে হয়। উড়ান কোম্পানিগুলির সিংহভাগ মে মাসের মধ্যে দেউলিয়া ঘোষিত হবে বলে জানা গেছে। একই সঙ্গে পর্যটন, তথ্য প্রযুক্তি, বিনোদন এমনকি ভারী শিল্পও বাদ যাবে না করোনার করাল গ্রাস থেকে। এই সময় অতি কঠোর হাতে লাগাম ধরার প্রয়োজন। একজনের সামান্য গাফিলতি, দায়িত্বজ্ঞানহীনতা লক্ষ মানুষের বিপদের কারন হবে।
এরকম একটা সময়ে, যখন আপনার মুখ্যমন্ত্রীত্বে করোনা কনট্রোলে পশ্চিমবঙ্গ আন্তর্জাতিক প্রশংসা পাচ্ছে সেই সময় বাঘের ঘরে এ হেন ঘোঘের বাসা ক্ষমাহীন অপরাধ। আপনার ওই মহিলা অফিসার (নাম করছি না) শুধুমাত্র অনৈতিক কাজ করেছেন তাই নয়, যে আইনের বলে আপনি রাজ্য জুড়ে মহামারী ঘোষণা করেছেন, যে আইনের অধীনে নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম পালন অবশ্য কর্তব্য, সেই নিয়ম না মেনে তিনি আইন লঙ্ঘন করেছেন।

একদিকে অশিক্ষা আর অন্যদিকে শিক্ষিত মানুষের অহংকারী নির্বুদ্ধিতা, এই দুটি ভাইরাসকেই আপনাকে মারতে হবে দিদি।
ভোট ভুলে, রাজনীতি ভুলে, নিজের ইমেজের ক্ষতি হবে নাতো? তা’ও ভুলে আপনাকে কঠোর হতে হবে। এটাই বুঝিয়ে দেবার চুড়ান্ত সময় যে প্রয়োজনে আপনি ‘রাফ এন্ড টাফ।’

প্রণামান্তে,
দেবক।

Spread the love

Check Also

করোনা-লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যেই কোন্নগরে শক্তিশালী বোমার আতঙ্ক

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। সাতসকালে কোন্নগরে বোমাতঙ্ক। সোমবার রাতে কোন্নগরের ধর্মডাঙ্গায় বোমার মতো কিছু পরে থাকতে …

দেশীয় শিল্পের বিকাশ ঘটানোর সঠিক সময় এটাই :মোদী

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। সারা বিশ্বে করোনার অর্থনৈতিক প্রভাব যে মারাত্মক পড়তে চলেছে সেই বিষয়ে আগেই …

মমতার দাবি নস্যাৎ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানাল, পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্ত ৯১ জন

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। করোনা ভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা জানিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে ওঠা তথ্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!