Home / TRENDING / ‌ডার্বির আগে ইস্টের প্লাজা বাগানের সনিকে কী হুঙ্কার দিলেন?‌

‌ডার্বির আগে ইস্টের প্লাজা বাগানের সনিকে কী হুঙ্কার দিলেন?‌

নিজস্ব সংবাদদাতা :

শেষ পাঁচমাসে অনেকটা বদলেছেন তিনি । অনেক দায়িত্ববান ও টিমম্যান । উইলিস প্লাজাকে ডার্বির আগে পাওয়া গেল এক অন্যরকম মেজাজে । প্রত্যেকদিন বিকেলে সল্টলেকের রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো ওর অভ্যাস । আজও তাই ইস্টবেঙ্গল মিডিয়ার জন্য রাস্তাতেই ঘুরে চলল ইন্টারভিউ পর্ব ।

আইজল ম্যাচে ভাল খেলেছেন । একটা শট পোস্টে না লাগলে ম্যাচের হিরো হতে পারতেন :

হ্যা । পোস্টে লাগল বলে আফসোস হচ্ছে এখনও । তবে , অনেকদিন পর নিজের ছন্দে ছিলাম । ভাগ্য ভাল থাকলে গোলটাও করতে পারতাম ।

ডার্বিতে এরকম গোল নষ্ট করলে তো সমস্যা হবে :

ডার্বিতে গোল করবই । আগের থেকে অনুশীলনে অনেকবেশি পরিশ্রম করছি । নিজেকে অনেকবেশি ফিট মনে হচ্ছে । ফেডকাপের সেই ডার্বির পর সারারাত ঘুমোতে পারিনি । এবার গোল করে সেটা ভুলতে চাই ।

গোল না পেলে আপনাকেও তো রিজার্ভ বেঞ্চে বসতে হবে । চার্লস তৈরী কিন্তু ।

সব স্ট্রাইকারই গোল করতে চায় । তবে , কে গোল করছে সেটা গুরত্বপূর্ণ নয় । দিনের শেষে তিনপয়েন্টটাই আসল । চার্লস গোল করলে রিজার্ভ বেঞ্চেও বসতে রাজি । ইস্টবেঙ্গলকে লিগটা শুধু জেতাতে চাই ।

ডার্বি মানেই সনি নর্ডির বিপক্ষে লড়াই :

দেখুন , সনি এবারের লিগের সেরা ফুটবলার । অনেকটা দায়িত্ব নেয় , প্রকৃত নেতা । তবে , আমরা মোহনবাগানের বিরুদ্ধে খেলব । কোনও একজনের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই নয় ।

আগের বছরেও দলে ছিলেন , এবছরের ড্রেসিংরুমে কি পরিবর্তন দেখছেন ?

একটাই পরিবর্তন ।সেটা, খালিদ জামিল। ওর মত নেতা , অবিভাবক আগে দেখিনি । দলের সকলকে সমান নজরে দেখেন । এভাবে একজন কোচ পেলে ড্রেসিংরুমের চেহারাটাই বদলে যায় অনেকটা ।

উনি তো আপনাকে দলে চেয়েছিলেন ? ওর ছোঁয়ায় কি প্লাজাও এতটা বদলালো ?

অবশ্যই । আগে ফুটবলের বাইরে ফোকাসটা সরে যাচ্ছিল । এবার ফুটবলে ডুবে আছি । খালিদ আমাকে যেভাবে আগলে রেখেছেন , তাতে ওর প্রতি আমি কৃতজ্ঞ । এবার ভাল ফুটবল উপহার দিয়ে ওকেও কিছু ফিরিয়ে দিতে হবে ।

কাটসুমি আর আমনার পাশে খেলতে কেমন লাগছে ?

কাটসুমি আর আমনা দুজনেই প্রকৃত টিমম্যান । দলের জন্য ফুটবলটা খেলে ।কিছুদিন সময় দিন, আমাদের ‘ত্রয়ী’টা দাড়িয়ে গেলেই ইস্টবেঙ্গলের ঘোড়া ছুটবে ।

ফুটবলের বাইরে প্লাজার জীবনশৈলীটা কি বদলেছে ?

অনেকটা বদলেছে । আমার স্ত্রী সন্তানসম্ভবা । এবার জীবনের প্রতি আরও সিরিয়াস হতে হবে । আমার ভাই , বোন আমার উপর নির্ভরশীল । তাই ফুটবলটাই এখন মন দিয়ে খেলতে চাই ।

যুবভারতীর নতুন স্টেডিয়ামে খেলতে কেমন লাগল ?

অসাধারণ । পেশাদার ফুটবলাররা এরকমই একটা মাঠ চায় । এরকম মাঠেই ভাল ফুটবল খেলা যায় । আগের দিন যুবভারতীতে এসে এত সুন্দর ড্রেসিংরুম ও ব্যাবস্হাপনা দেখে চমকে গেছিলাম কিছুটা।

বিভিন্ন বিষয়ে ভিডিয়ো পেতে চ্যানেল হিন্দুস্তানের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

https://www.youtube.com/channelhindustan

https://www.facebook.com/channelhindustan

Spread the love

Check Also

আপনারা সরকারের মুখ বলে আধিকারিক দের বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর।

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্ক: রাজ্যের আমলাদের উজাড় করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার প্রথমে নতুন করে সংস্কার হওয়া …

WBCS দের সভা থেকে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্ক: WBCS দের সঙ্গে বৈঠক, আর সেখান থেকেই করা বার্তা রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের। …

বন্ধ ব্যান্ডেল জংশন

চ্যানেল হিন্দুস্থান ডেস্কঃ রুট রিলে ইন্টারলকিং কেবিন স্থানান্তর ও থার্ড লাইন সম্প্রসারণের জন্য হাওড়া-বর্ধমান মেইন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *