Breaking News
Home / TRENDING / ১৫ দিনে তিনবার পুলিশে বিদ্রোহ কলকাতায় ! টুইটে রাজ্যকে ভৎসনা রাজ্যপালের

১৫ দিনে তিনবার পুলিশে বিদ্রোহ কলকাতায় ! টুইটে রাজ্যকে ভৎসনা রাজ্যপালের

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো:

রাজ্যে ক্রমেই বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে সামনের সারি থেকে লড়াই করছেন পুলিশকর্মীরা। অথচ সেই পুলিশ কর্মীদের নিরাপত্তার বিষয়টি যথাযথভাবে দেখছে না সরকার এমনটাই অভিযোগ পুলিশ মহলের একাংশের। সরকারের এই উদাসীনতা নিয়ে খোদ কলকাতা শহরে একাধিক জায়গায় বিক্ষোভ দেখান পুলিশকর্মীরা। এবার পুলিশকর্মীদের সেই অভিযোগের পাশে দাঁড়িয়ে রাজ্য সরকারকে ফের ভর্ৎসনা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় (Jagdeep Dhankhar)।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বিধাননগর এলাকায় কলকাতা সশস্ত্র পুলিশের ৪র্থ ব্যাটেলিয়ানের (Kolkata Police 4th Battalion) সামনে বিক্ষোভ ২৫-৩০ জন পুলিশকর্মী। এদিন বিক্ষোভকারীরা ব্যাটালিয়নের সামনে থাকা একটি পোস্টার ছিঁড়ে দেন এবং পুলিশ ব্লিডিং লক্ষ্য করে পাথরও ছোঁড়েন। তাঁদের অভিযোগ, ওই ব্যাটেলিয়ানের বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বাকি পুলিশকর্মীরা যাতে নিরাপদে থাকে, তার জন্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি সরকার। এমনকি যে পুলিশকর্মীরা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তাঁদের সংস্পর্শে যেসব পুলিশকর্মী এসেছেন, তাঁদের কোয়ারান্টিন করার কথা থাকলেও করা হয়নি। এছাড়া কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীদের দেওয়া হয়নি পর্যাপ্ত বর্মবস্ত্রও (পিপিই)।

এর আগে গরফা থানা ও এজেসি বোস রোড পুলিশ ট্রেনিং স্কুলেও (Police Training School) বিক্ষোভ দেখান পুলিশ কর্মীরা। খোদ পুলিশ কর্মীদের এই বার বার বিক্ষোভে কিছুটা অস্বস্তিতে সরকার। এরপর আজ রাজ্যপাল যেভাবে পুলিশ কর্মীদের পাশে দাঁড়িয়ে টুইট করেছেন, তা সরকারের অস্বস্তি আরও বাড়িয়ে দিল। এদিন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় টুইট করে বলেন, “আমি খুবই চিন্তিত। প্রথমে কলকাতা পুলিশ ট্রেনিং স্কুল, তারপর গরফা থানা এবং সর্বশেষ বিধাননগরে কলকাতা পুলিশের চতুর্থ ব্যাটেলিয়ানের ঘটনা আমায় স্তম্ভিত করেছে। উর্দিধারীদের এই ধরণের আচরণ খুবই চিন্তাজনক। এতে কলকাতা পুলিশের মহান ঐতিহ্যে আঘাত লাগছে।” একইসঙ্গে সরকারকে কাঠগড়ায় তুলে তিনি আরও বলেন, ” “সার্বিকভাবে ওঁদের ক্ষোভ প্রশমন করার জন্য এক্ষুনি যথাযোগ্য ন্যায্য পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন সরকারের। প্রশাসনকে স্বচ্ছ ও দায়িত্ববোধসম্পন্ন রাখতে আমলাতন্ত্র এবং পুলিশকে রাজনীতিমুক্ত হয়ে কাজ করতে হবে।” প্রসঙ্গত, এর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) কলকাতা পুলিশের ট্রেনিং স্কুলে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে দেখা করেন এবং তাঁদেরকে প্রয়োজনীয় সাহায্য করার আশ্বাস দেন। তারপরেও বিধাননগরে পুলিশকর্মীদের এই বিক্ষোভ প্রশাসনকে প্রশ্নের মুখে এনে দাঁড় করিয়েছে।

Spread the love

Check Also

গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব চরমে, বিজেপির দিকে পা বাড়িয়ে রাজীব, ইঙ্গিতে বললেন অরূপ

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির দিকে পা বাড়িয়ে আছে? এমন একটি গুঞ্জন বেশ …

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের থাবা পূর্ব রেলে : আক্রান্ত শিয়ালদহ ডিআরএম অফিসের কর্মী

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) সংক্রমনের থাবা ধরা পড়ল পূর্ব রেলে (Eastern Railway)। শনিবার …

করোনা মোকাবিলায় কলকাতায় বাড়ল কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা

চ্যানেল হিন্দুস্তান ব্যুরো। কলকাতা সহ রাজ্যে কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গেল। কলকাতা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!